Saturday, July 20, 2024
HomeRecent Live Banglaক্লাউড সিডিং কি ? দুবাই পানিতে তলিয়ে যাবার কারণ কি ?

ক্লাউড সিডিং কি ? দুবাই পানিতে তলিয়ে যাবার কারণ কি ?

কৃত্রিম বৃষ্টিপাত আসলে কী? কেন, কোথায়, কীভাবে এটি করা হয়? এর ভালো দিক এবং খারাপ দিক কি কি? আজ সেগুলো নিয়ে কথা বলব।

ক্লাউড সিডিং কি?

 ক্লাউডস  সিটিং এবং কৃত্রিম বৃষ্টিপাত নিয়ে কথা বলতে হলে প্রথমে মেঘ সম্পর্কে একটু কথা বলতে হবে। ছোট ছোট জলকণা বা জলীয়বাষ্প আস্তে আস্তে বায়ুমণ্ডলের উপরের দিকে উঠতে থাকে, বায়ুমন্ডলে ভাসতে থাকা ধূলিকণা বা লবণ কনার সাথে মিশে জলীয় বাষ্প ঠান্ডা এবং ঘনীভূত হয়ে মেঘ তৈরি হয়। 

একটা সময়ে যখন জলীয়বাষ্প বাতাসে ভেসে থাকার জন্য খুব বড় হয়ে যায়, তখন এগুলো বৃষ্টিপাত তুষার হিসেবে ঝরে পড়ে। ক্লাউড সিডিং এর মাধ্যমে আসলে মেঘের চারপাশে আরো জলকণা তৈরি করা হয়। যা মেঘ থেকে বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা বাড়িয়ে দেয়। এই কাজের জন্য সাধারণত লবণ অথবা সিলভার ছেটানা হয়। এগুলো সাধারণত ফিল্ম থেকে মেঘের উপর ছিটানো হয়, আবার কখনো কখনো বন্দুক বা রকেট ব্যবহার করে বায়ুমন্ডলে নিক্ষেপ করা হয়।

 ক্লাউড সিডিং নিয়ে প্রথম গবেষণার 940 এর দশকের দিকে শুরু হয়। ব্যাপারটা আধুনিক মনে হলেও এটি নিয়ে আসলে অনেক আগে থেকেই গবেষণা চলছে।বিশেষজ্ঞদের মতে ক্লাউড যদি সফলভাবে করা হয়, তাহলে ক্লাউড দিনে একটি এলাকার বৃষ্টিপাত 5 থেকে 15 শতাংশ পর্যন্ত বৃদ্ধি করতে পারে। কিন্তু এটি মনে রাখতে হবে যে, ক্লাউড সিডিং এর মাধ্যমে মেঘ তৈরি করা যায় না। এটি শুধু মেঘ থেকে বৃষ্টি তৈরি করতে পারে। সুতরাং আকাশে ক্লাউড বা মেঘ না থাকলে, নীল আকাশে ক্লাউড সেটিং করে কোন লাভ হবেনা।

ক্লাউড সিডিংয়ের প্রভাবঃ

 এবার জানা যাক, আমাদের পরিবেশের উপর  ক্লাউড সেডিংয়ের প্রভাব কি? আমরা আজকে ক্লাউড সিডিং নিয়ে এজন্যই কথা বলছি, কারণ খুব সম্প্রতি মধ্যপ্রাচ্যে হঠাৎ ভারী বর্ষণের কারণে যে বন্যা জলাবদ্ধতা তৈরি হয়েছে, তার জন্য অনেকেই ক্লাউড সেডিংকে দায়ী করেছেন। সে ব্যাপারে একটু পরে কথা বলছি। প্রশ্ন হল মানুষ কেন ক্লাউডসেডিং বা কৃতিম বৃষ্টিপাত করান।পাকিস্তানের লাহোর বিশ্বের ভয়াবহ বায়ু দূষণের শিকার শহরগুলোর মধ্যে অন্যতম। 2023 সালের ডিসেম্বর মাসে সেখানে বায়ু দূষণের মাত্রা কমাতে শহরের দশটি জায়গায় ক্লাউড সেডিং করিয়ে বৃষ্টিপাত করানো হয়। বিশ্বে যে সকল দেশ কৃত্রিম বৃষ্টিপাত ক্লাউড সেডিং করতে সবচেয়ে বেশি অর্থ খরচ করে। চীন তাদের মধ্যে অন্যতম। 2022 সালেও অত্যধিক তাপদাহের কারণে ইয়াংসি নদীর পানি কমে যায়। চরম পানি স্বল্পতা ও বিদ্যুৎ স্বল্পতা দেখা দেয় সেখানে।

রিসেন্ট লাইভ খবর পেতে ফলো করুন আমাদের গুগল নিউজ চ্যানেল

চীন তখন ছোট ছোট রকেটের মাধ্যমে  রাসায়নিকভাবে বৃষ্টিপাত ঘটিয়ে এ সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করে। শুনতে অবাক লাগলেও বছরের নির্দিষ্ট পরিমাণ তুষারপাত না হলেও ক্লাউড সিডিং করা হয়। এরকম বিভিন্ন প্রয়োজনে জাপান, ঈশ্রায়েল, যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া, সৌদি, আরব, মরক্কো, লিবিয়া, সিরিয়া, জর্ডান ও সংযুক্ত আরব আমিরাত সহ বিশ্বের 50 টিরও বেশি দেশে ক্লাউড সেটিং করা হয়। সংযুক্ত আরব আমিরাত বন্যা বা জলাবদ্ধতার জন্য অনেকে ক্লাউড সিডিংকে দায়ী করলেও বিশেষজ্ঞরা এ ব্যাপারে সহমত নন। সংযুক্ত আরব আমিরাত ও দেশটির দুবাইতে বন্যা শুরু হয়েছিল গত মঙ্গলবার।

একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে, দেশটিতে ক্লাউড সিডিংয়ের কাজে ব্যবহৃত বিমানগুলো রবিবার এবং সোমবার মোতায়েন করা হয়েছিল। মঙ্গলবারে নয়। তবে কখন ক্লাউড সিডিং করা হয়েছিল তা স্বাধীনভাবে যাচাই করতে পারিনি।  বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এটি খুব বেশি হলে ঝড়ের উপর সামান্য প্রভাব ফেলতে পারে এবং বন্যার জন্য ক্লাউড সিডিং এর  ওপর আলোকপাত করাটা বিভ্রান্তিকর। আবহাওয়া বিদরা বলেন, যে দুবাইয়ের চরমভাবাপন্ন আবহাওয়ার বিষয় আগে থেকেই পূর্বাভাস দেয়া হয়েছিল।

এই ঘটনার আগে কম্পিউটার মডেল গুলো খুব ভালোভাবেই ভবিষৎবাণী করেছিল, যে 24 ঘণ্টার মাঝে এক বছরের সমান বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা আছে। আবুধাবির খলিফা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ ও ভুবন অর্থবিভাগের প্রধান অধ্যাপক যায়না ফ্রান্সিস বলেন, যখন এ ধরনের পূর্বাভাস দেয়া হয়, তখন ক্লাউড সিডিংয়ের  মতো একটি ব্যয়বহুল প্রক্রিয়া প্রয়োগ করা হয় না। কারণ তখন এই ধরনের শক্তিশালী ব্যবস্থা প্রয়োগের কোন প্রয়োজনই পড়ে না। সংযুক্ত আরব আমিরাতের ন্যাশনাল সেন্টার ফর মেট্রলজি 2014 সালের হিসাব অনুযায়ী  ক্লাউড সিডিংয়ে প্রতি পাঁচ হাজার ডলার খরচ করে 3 লাখ ডলার সমমূল্যের পানির উপযোগিতা পাচ্ছেন তারা।

ক্লাউড সিডিং করা কি ঠিক??

 আপাতদৃষ্টিতে উপকারের জন্যই ক্লাউড সিডিং করানো হলেও অনেকের মধ্যে একে ঘিরে ভয়ও কাজ করে। গ্লোভাল ইনভারমেন্ট করেসপন্ডেন্ট নাবিন সিং এর মতে, কৃত্রিমভাবে বৃষ্টিপাত ঘটানো আসলে দিনশেষে প্রকৃতি নিয়ে এক ধরনের খেলা করা। প্রকৃতির নিয়ম কে নিজের মত পরিবর্তন করে তাৎক্ষণিকভাবে এর ফলাফল ভোগ করা, পরিবেশের ক্ষেত্রে কিংবা মানুষের শরীরের ক্ষেত্রে এর দীর্ঘমেয়াদি প্রভাব আছে কিনা, সেটা এখনই বলা যাচ্ছে না। তিনি বলেন, বিষয়টা অনেকটা স্টেরয়েড ব্যবহার এর মত। স্টেরয়েড ব্যবহার আমাদের তাৎক্ষণিক কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি পায়, তবে দীর্ঘ মেয়াদে এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থাকে।

 তবে সবকিছুর পরও আবহাওয়া ও জলবায়ু পরিবর্তন এবং ভবিষ্যতের কথা মাথায় রেখে, ক্লাউড সিডিং মতো নতুন প্রযুক্তি নিয়ে মানুষকে আরও ভাবতে হবে।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular